ঢাকা   ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ । ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ । সোমবার । সকাল ১০:৩৮

বাকেরগঞ্জের কবাইতে শ্বশুর বাড়ির নির্যাতনের শিকার বিধবা গৃহবধু ইসরাত জাহান

বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ বাকেরগঞ্জ উপজেলার কবাই ইউনিয়নের হানুয়া গ্রামের প্রয়াত সাংবাদিক জাকির হোসেন নান্টুর দ্বিতীয় স্ত্রী ইসরাত জাহান (২৮) কে শ্বশুর শাশুরী কর্তৃক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। জানা যায়,কবাই ইউনিয়নের হানুয়া গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল মতলেব হাওলাদারের পুত্র মৃৃত জাকির হোসেন নান্টুর প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পরে ইসরাত জাহান কে বিয়ে করার ২ বছর ১০ মাস পরে নান্টু সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান। নান্টু গর্ভবতী ১ম স্ত্রীর ছেলে জয় ও মেয়ে জেমির নামে দান পত্র দলিল দিয়ে যায়।

এক পর্যায় ইসরাত জাহান সংশোধনের জন্য আদালতে মামলা করেন। এবং আইন অনুযায়ী নিষেধাজ্ঞা বহাল করে আদালত। নান্টুর স্ত্রী ইসরাত জাহান বলেন,আমার স্বামী মারা যাওয়ায় প্রতি নিয়ত আমার উপর শারীরিক নির্যাতন করেন আমার শ্বশুর মতলেব হাওলাদার (৬৫), শাশুড়ি আমিরুন নেছা (৬০), ভাসুর নাসির উদ্দিন (৪৮) ভাসুরের স্ত্রী রিনা বেগম (৩৫), ভাসুরের মেয়ে রিপা (১৮)। এমতাবস্থায় চলতে থাকলে আজ ১৭ ই আগস্ট সোমবার সকাল আনুমানিক ৯ টা ৩০ মিনিট এর সময় আমার বসতঘড়ের বাথরুমে তালা দেয়। এবং আমার শ্বশুর বলতে থাকে আমার বাড়ি থেকে বের হয়ে যাও। এক পর্যায় কথা কাটাকাটি হওয়ার পরে আমার বৃদ্ধ মা ও আমাকে মারধর করে। আমার বসত ঘড়ের আলমিড়া ভেঙ্গে নগদ ১০ হাজার টাকা ৪ ভরি স্বর্ন নিয়ে যায়। তারপর ইসরাত জাহানের মা বলেন এগুলো তো আমাদের দেয়া স্বর্ন এগুলো নিয়ে যাচ্ছেন কেন। একথা বলার পর আমার বৃদ্ধ মা কে মাথার উপর অাঘাত করে জখম করে।এবং ৭ টি সেলাই লাগে তার মাথায়।আমি ৯৯৯ কল দিলে ঘটনা স্থলে পুলিশ এসে পরিদর্শন করে যায়। ইসরাত জাহান আরো বলেন,আমার স্বামী মারা যাওয়ার পর আমাকে কোন টাকা পয়সা দেয়নি। আমার স্বামীর দোকান,ব্যবসা, নদগ অর্থ সবকিছু আমার শ্বশুর মোতালেব হাওলাদার আত্নসাৎ করেন। সুষ্ঠ বিচার পেতে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

%d bloggers like this: