ঢাকা   ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ । ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ । সোমবার । দুপুর ২:৩৯

বরিশালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত পোষ্টার ছেড়ার অভিযোগ

 বিশেষ প্রতিনিধিঃ  বরিশালের মেহেন্দীগঞ্জ মাষ্টার হাট, উলানিয়া, কালিগঞ্জ, গোবিন্দপুর এলাকায় বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ঐতিহ্য ও গৌরবময় ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সজীব ওয়াজেদ জয়, যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল, বরিশাল-১ আসনের সংসদ সদস্য আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ, বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ, মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি পারবেজ চান ও সাধারণ সম্পাদক রকিব মাহামুদ, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ১৩নং গোবিন্দপুর ইউনিয়ন শাখার সাবেক সভাপতি মো. রুবেল হোসেন’র ছবি সম্বলিত পোষ্টার, ব্যানার, ফেস্টুন, বিল বোর্ড ও প্ল্যাকার্ড ছেড়ার হিড়িক পড়েছে।

রাতের আধারে এক দল দুর্বৃত্তরা এসব পোষ্টার ছিড়ে ফেলেছে। ১০ই নভেম্বর মঙ্গল বার দিবাগত রাতের আধারে বরিশাল-৪ আসনের এমপি পঙ্কজ দেবনাথের নির্দেশে একদল সন্ত্রাসী গ্রুপ এসব পোষ্টার ব্যানার ধারালো চাকু দিয়ে ছিড়ে ও ভেঙ্গে ফেলেছে এমনটাই মনে করছেন আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্ধরা। এর ফলে দলের মধ্যে স্বাভাবিক শৃঙ্খলা বিঘ্নিত হতে পারে এবং আইন শৃঙ্খলা অবনিত হতে পারে বলে মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি পারবেজ চান উল্লেখ করেন। সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, মেহেন্দিগঞ্জ থানার সামনেসহ পৌর শহরের গুরুত্বপূর্ন স্থানে সাটানো বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সজীব ওয়াজেদ জয় এর পোষ্টার, ফেস্টুন, ব্যানার, বিল বোর্ড ও প্লাকার্ড ছিড়ে ফেলা হয়েছে। কোন কোন পোষ্টারে ধারালো চাকু অথবা ব্লেড দিয়ে মাঝখানে শুধুমাত্র একটান দিয়ে ছিড়ে ফেলা হয়েছে। কোথাও আবার ব্যানার গুলো ছিড়ে নিচে ফেলে দেয়া হয়েছে।

কোন কোন স্থানের সাটোনো পোষ্টার উধাও হয়ে গেছে। এ ঘটনায় মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা আ.লীগের নেতাকর্মীদের মাঝে এক ধরনের উত্তেজনাকর পরিবেশ বিরাজ করছে। মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা আ.লীগের অনেক নেতাকর্মী জানান, জাতির জনকের সম্বলিত পোষ্টার ছেড়ার ঘটনা আসলেই দু:খজন। যারা এসব পোষ্টার ছেড়ার সাথে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনকে অনুরোধ করছি। দলের ভিতরে অনুপ্রবেশ কারীরা এ ঘটনা ঘটাতে পারে বলেও প্রবীণ নেতাদের ধারণা হচ্ছে। যারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের মাঝে আদর্শ নেই, তারা হীন মানসিকতার। এ বিষয় মেহেন্দীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জকে গোবিন্দপুর ইউনিয়নের যুবলীগের সভাপতি পদ প্রার্থী রুবেল মিয়া মুঠোফোনে অবগত করলেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি পারবেজ চান বিজয়ের আলো টিভিকে জানান, যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ এবং যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল বরাবর লিখিত আকারে অভিযোগ জানানো হয়েছে। তারা যে সিদ্ধান্ত দিবেন আমরা তৃণমুলের নেতাকর্মী তাই মাথা পেতে নেবো।

%d bloggers like this: