ঢাকা   ২৮শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ । ১৪ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ । মঙ্গলবার । সন্ধ্যা ৬:২৬

বরিশালে কাশীপুরে জমি দখল, মিথ্যা সাক্ষী ও সুদের ব্যাবসায় কোটিপতি গিয়াস উদ্দিন দফাদার!

ইমরান হোসেন : টাকার বিনিময় মিথ্যা সাক্ষী দেওয়া, অন্যায় ভাবে জোর পূর্বক জমি দখল। এলাকায় সুদের ব্যাবসা করে টাকার পাহাড় বানিয়ে এখন তিনি কোটিপতি। বয়স তার যতই বাড়ছে ততই যেন তার প্রতারনার কৌশলও বাড়াচ্ছেন। বলছি বরিশাল সদর উপজেলার ২নং কাশীপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড বিহঙ্গল এলাকার বাসীন্দা মৃত গফফুর দফাদারের পুত্র গিয়াস উদ্দিন দফাদারের কথা। অভিযোগ রয়েছে গিয়াস উদ্দিন দফাদারের পুত্র একটি থানার কনেস্টবল (পুলিশ সদস্য), যার দাপট দেখিয়ে এলাকাকে সবসময় নিজের মতো সরগরম করে রাখে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গিয়াস উদ্দিন দফাদারের ফাঁদে পা দিয়ে অনেকের জমি জমাও হাড়াতে হয়েছে। খোজঁ নিয়ে জানাগেছে কাশীপুর জাম্বুরা তলা এলকায় তার সুদের সিন্ডিকেট বেশি হওয়ায় তাকে সেখানকার লোকেরা “মাথার টাকা” নামে চিনে থাকেন। স্থানীয় নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন বাসীন্দা অভিযোগ করে জানিয়েছন গিয়াস উদ্দিন দফাদার মহান মুক্তিযুদ্ব পরবর্তী সময়ে কাশীপুরের বিভিন্ন স্থানের হিন্দুদের জমি দখল করলেও তার ভয়ে কেউ কিছু বলার সাহস পায়নি। কাশীপুর ঝড়জরিয়া তলার বাসীন্দা আলমগীর খান জানান, গিয়াস উদ্দিন দফাদার আমাদের ক্রয়কৃত জমির উপর কু নজর দিয়ে এখন তা তার নিজের দখলে নেওয়ার চেস্টা করছেন।

এদিকে বিহঙ্গল এলাকার আব্দুস সালাম নামের একজন জানান, আমি সহ আমার এলাকার বাসীন্দা আবু তালেব ফকিরের জমির উপরেও নজর পরেছে গিয়াস উদ্দিন দফাদারের। সারসী এলাকার আজগর আলী তালুকদার সংবাদকর্মীদের কাছে অভিযোগ করে জানান, আমার জমি নিয়ে গিয়াস উদ্দিন দফাদারের বেশ কয়েক বছর যাবৎ দখলে নেওয়ার চেস্টা চালাচ্ছে। গিয়াস উদ্দিন দফাদারের এমন অত্যাচারের হাত থেকে বাচঁতে দ্রুত প্রশাসনের নজরদারীতা কামনা করেন কাশীপুরের সর্বস্তরের জনগন। উপরোক্ত অভিযোগের বিষয়ে গিয়াস উদ্দিন দফাদারের সাথে কথা বললে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করেন।

(চলমান প্রতিবেদন: ০২, আগামী সংখ্যায় থাকছে আরো গুরুত্বপূন্য তথ্য নিয়ে বিস্তারিত।)

%d bloggers like this: