ঢাকা   ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ । ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ । বৃহস্পতিবার । সন্ধ্যা ৬:১৬

বরিশালে কাউনিয়ায় শালিস বৈঠকে দুই সহোদরকে কুপিয়ে জখম

স্টাফ রিপোর্টারঃ বরিশাল নগরীর কাউনিয়া পুরান পাড়া এলাকায় প্রবাসীর স্ত্রীকে উত্যক্ত করাকে কেন্দ্র করে সালিশ বৈঠকে হামলা চালিয়ে দুই সহোদর কে পিটিয়ে ও কুপিয়ে রক্তাক্ত করেছে মিজান ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী। শুধু তাই নয় প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে নাটকীয় ভাবে শেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বারেক ও তার স্ত্রী পেয়ারা বেগম। শুক্রবার(৩০ অক্টোবর) বিকেল সাড়ে চারটায় পুরান পাড়া ৩ নং ওয়ার্ডের লস্কর বাড়ির সম্মুখে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন, আক্তার হোসেন সবুজ ও তার ছোট ভাই কামরুজ্জামান বিপ্লব। তারা ওই গ্রামের বাসিন্দা শহিদুল ইসলামের ছেলে। বর্তমানে তারা শেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আহতের স্বজন জসিম জানান, ওই গ্রামের বাসিন্দা নুরুল ইসলাম লস্করের ছেলে কুয়েত প্রবাসী নাজমুল লস্করের স্ত্রী তামান্নাকে দীর্ঘদিন ধরে মোবাইল ফোনে যৌন উত্যক্ত করে আসছে একই এলাকার বাসিন্দা বারেক হাওলাদারের ছেলে সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী মিজান। এ ঘটনায় নাজমুল স্থানীয় কাউন্সিলর সৈয়দ হাবিবুর রহমান ফারুকের কাছে অভিযোগ করলে শুক্রবার বিকেলে কাউন্সিলরসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা সালিশ বৈঠকে বসেন। এ সময় সালিশ বৈঠকে উত্তেজিত হয় আওয়ামী লীগ নেতা মজিবর মৃধার নেতৃত্বে, মিজান, নাসির, বশির ও বারেক সহ অজ্ঞাত আরও ৪/৫ জনে মিলে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে কাউন্সিলরের সহযোগি সালিশদার আক্তার হোসেন সবুজকে হত্যার উদ্দেশ্যে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এ সময় তার ছোট ভাই বিপ্লব তাকে উদ্ধার করতে গেলে তাকেও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। এ সময় উল্টো মামলা দিয়ে নাজমুলকে পুলিশ দিয়ে আটক করায় নিজাম ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী। পরে স্থানীয়রা আহতদেরকে উদ্ধার করে তাৎক্ষণিক শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করে। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে সবুজের ডানকান বিচ্ছিন্ন হয়েছে বলে ওই ইউনিটের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা জানান। ভুক্তভোগী তামান্না জানান, তার স্বামী নাজমুল লস্কর কুয়েত প্রবাসী থাকা সুবাদে তাকে দীর্ঘদিন ধরে মোবাইল ফোনে উত্যক্ত করে আসছে মিজান। উল্টো মামলা দিয়ে তাকে পুলিশে ধরিয়ে দিয়েছে। এছাড়া তার ছবি তুলে অশ্লীল ছবি বানিয়ে নেটে ছেড়ে দিবে বলে তাকে ব্লাকমেইল করার ভয়-ভীতি দেখিয়ে আসছে। এদিকে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে নিজেদের শরীরে আঘাত করে বারেক ও তার স্ত্রী পেয়ারা নাটকীয়ভাবে শেবাচিম হাসপাতাল চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে আহতের স্বজনরা জানান।

%d bloggers like this: