ঢাকা   ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ । ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ । শনিবার । দুপুর ১২:০৫

বরিশালে অষ্টম শ্রেনী পড়ুয়া স্কুল ছাত্রীকে অপহরন, মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বরিশালে অষ্টম শ্রেনী পড়ুয়া এক স্কুল ছাত্রীকে অপহরন করা হয়েছে৷ অপহরকৃত ছাত্রীর নাম মোসাঃ তারমিন আক্তার(১৩)। সে চরমোনাই ইউনিয়নস্থ রাজারচর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেনীর শিক্ষার্থী ও চরমোনাই ইউনিয়নের ০৫ নং ওয়ার্ড জোমাদ্দার বাড়ি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন হাওলাদার বাড়িতে বসবাসরত মোঃজসিম উদ্দিনের কন্যা।

গত ৪ সেপ্টেম্বর বেলা ১১;৩০ মিনিটে ৫ নং চরমোনাই ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডস্থ রাজারচর মাধ্যমিক বিদ্যালয়’র সামনে ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানায় গত ১০-ই সেপ্টেম্বর মামলা দায়ের করেছেন নিখোজ তারমিন আক্তারের বাবা মোঃ জসিম হাওলাদার৷

মামলা নং-৩০।আসামীরা হলেন,বরিশাল বন্দর থানাধীন বাড়ৈকান্দি এলাকার কাশেম হাওলাদারের পুত্র মোঃ জুয়েল হাওলাদার(২৫) ও ৫ নং চরমোনাই ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মুন্না হাওলাদারের স্ত্রী খাদিজা বেগম(২১)।

তবে মামলার ৪ দিন পেরিয়ে গেলেও পুলিশ এখন পর্যন্ত অপহরণকৃত ছাত্রীকে উদ্ধার ও অপহরণকারী জুয়েল ও খাদিজাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়নি।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, চরমোনাই ইউনিয়নে জসিম হাওলাদারের বাড়ীর পার্শ্বে আলী হোসেন জোমাদ্দারের বাড়িতে গত ২/৩ মাস পুর্বে ডিপটিউবওয়েল স্থাপন কার্যক্রমের জন্য টিউবওয়েলকর্মী জুয়েল তালুকদার সহ অন্যান্য কর্মীরা আসে। পরবর্তীতে গত ১০/১২ দিন পুর্বে একই এলাকায় বাবুল রাড়ীর বাড়িতে আসে টিউবওয়েল স্থাপনের জন্য।এর-ই মধ্যে স্থানীয় বাসিন্দা জসিম হাওলাদারের কন্যা তারমিন আক্তা্র বিভিন্ন সময় বাড়ির বাহিরে গেলে তাকে নানান ভাবে উক্তক্ত ও প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল জুয়েল হাওলাদার।বিভিন্ন উপায়ে তারমিন আক্তার তার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ব্যর্থ জুয়েল হাওলাদার তারমিনকে নিজের কব্জায় বন্ধি করতে নানান ফন্দি আটে।
এর-ই ধারাবাহিকতা জুয়েল তার অসৎ উদ্দেশ্য সাধনের জন্য বেপরোয়া হয়ে উঠে। ও এলাকার বাসিন্দা খাদিজা বেগম নামে এক যুবতীর চায়ের দোকানে আশ্রয় নেয়।খাদিজার নিকট বিভিন্ন সময় তারমিন আক্তারের সাথে কথা বলিয়ে দেয়ার জন্য অনুরোধ করেন। বিভিন্ন সময় জসিম ও তার কন্যা তারমিন আক্তার এলাকার প্রতিবেশী ও পুর্বপরিচিত বিধায় খাদিজার পরিচালিত চায়ের দোকানে আসা যাওয়া করতো । এর-ই ফলশ্রুতিতে খাদিজা বেগম
জুয়েলকে তারমিন আক্তারের সাথে বিভিন্ন ভাবে যোগাযোগ করিয়ে দিত। এমন-কি খাদিজার ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বার- ০১৭৪৯৮৩…৩৭ নাম্বার ব্যবহার করে জুয়েল তালুকদারের ০১৮৮৯৫…৪১ নাম্বারে ফোন করে কথা বলিয়ে জুয়েলকে সহযোগীতা করতো। যোগাযোগের এক-পর্যায়ে খাদিজা ও জুয়েল নাবালিকা অষ্টম শ্রেনী পড়ুয়া তারমিনকে বিভিন্ন ভাবে মিথ্যা প্রলোভনে আসক্ত করে গত ৪ সেপ্টেম্বর ১১;৩০ মিনিটে বরিশাল কোতয়ালী থানাধীন ৫ নং চরমোনাই ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডস্থ রাজারচর মাধ্যমিক বিদ্যালয়’র সামনে থেকে পুর্বপরিকল্পিতভাবে জোর পুর্বক মোটরসাইকেলযোগে তারমিন আক্তারকে অপহরন করে।তারমিন আক্তারকে দিনভর খোজা-খুজি করে কোথাও খুজে না পেয়ে তার বাবা বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানায় ১০-ই সেপ্টেম্বর একটি অপহরন মামলা দায়ের করেন।
এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সাব-ইন্সপেক্টর(নিরস্ত্র) মোঃ রিয়াজুল ইসলাম জানান, আসামীদের আইনের আওতায় ও অপহরণকৃত তারমিনকে উদ্ধারে জোর প্রচেস্টা অব্যাহত রয়েছে।দ্রুত আমরা অভিযুক্তদের আটক পুর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনে আশাবাদ ব্যক্ত করছি।

%d bloggers like this: