ঢাকা   ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ । ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ । সোমবার । দুপুর ২:০০

বরিশালের হাসপাতাল রোডে ফার্নিচার ব্যবসায়ী বাবুর ত্রাস, সাংবাদিকের উপর হামলা, থানায় অভিযোগ

★ হামলাকারীর হোতা বিএনপির সন্ত্রাসী ফার্নিচার ব্যাবসায়ি বাবু

★ অবৈধ ভাবে সড়কের পাশে মালামাল রাখার অভিযোগ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক ।।
বরিশাল নগরীর হাসপাতাল রোডে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ডায়াগনস্টিক ব্যবসায়ী ও সাংবাদিক ফয়সাল রাকিবুলের উপর হামলার ঘটনা ঘটে। জানা যায়, গতকাল সন্ধা ৮ টার সময় হাসপাতালে রোডে অবস্থিত ল্যাবপয়েন্ট ডায়াগনস্টিক সেন্টারে সামনে মোটরসাইকেল রেখে রোগী নিয়ে ডায়াগনস্টিক সেন্টারে যায় অত্র প্রতিষ্ঠানের পরিচালক আব্দুস সালাম। হঠাৎ কিছু সময় পর, অত্র প্রতিষ্ঠানের মালিক ফয়সাল রাকিবুলকে তার প্রতিবেশী দোকানদার শরিফুল ইসলাম বাবু নামের এক যুবক উচ্চস্বরে বলে,আমার দোকানের সামনে গাড়িটি রাখা কার। তদ্রুপ ফয়সাল রাকিব বিষয়টি আব্দুস সালামকে জানালে সে তড়িঘড়ি করে শরিফুল ইসলাম বাবুর দোকানের সামনে গেলে হঠাৎ কিছু বুঝে উঠার আগেই আব্দুস সালামকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে।
একপর্যায়, আব্দুস সালাম শরিফুল ইসলাম বাবুকে বিষয়টির জন্য আন্তরিক ভাবে দুঃখিত বললেও তাতেও ক্ষ্যান্ত হননি সন্ত্রাসী বাবু।
তখন বিষয়টি নিয়ে ডায়াগনস্টিক ব্যবসায়ী রাকিবুল হাসান সমাধান করতে গেলে তার উপর অতর্কিত হামলা চালায় বাবু সহ তার সন্ত্রাসী গ্যাং। হামলার পরই চেতনাহীন হয়ে পড়ে রাকিবুল হাসান।
স্থানীয়রা উদ্ধার করে, তাকে সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়।
জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবত ওই এলাকায় সন্ত্রাসী ভুমিকায় বলিয়ান রয়েছে ব্যবসায়ী বাবু। তার নিজস্ব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ক্লাসিক ফানির্চার নামক ওই দোকানে সন্ধার পরই একাধিক লোকজন নিয়ে চলে আড্ডাবাজী।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হাসপাতালের রোডের এক ব্যবসায়ী অভিযোগ করে বলেন, বাবু স্থানীয় হওয়ায় এই এলাকায় সব সময় ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে চলে। তার দোকানের সামনে কেউ যানবহন রাখলে তাকে উচ্চস্বরে গালাগালি করে। অনেক সময় হামলা করতেও বাধ্য হন। যদিও সিটি কর্পোরেশন সুত্র বলেছে, সড়কের উপর কোন মালামাল রেখে ব্যবসা পরিচালনা করা অবৈধ সেখানে বাবুর ক্লাসিক ফার্নিচারের মালামাল সড়কের উপর রাখা হয়।
এ ব্যাপারে ল্যাব পয়েন্ট ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সাংবাদিক ফয়সাল রাকিব বলেন, আমার সাথে এই বিষয়টি নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত দ্বন্দ্ব লেগে আছে। এরই সুত্র ধরে আমার ডায়াগনস্টিক সেন্টারটির পরিচালক সালামের সাথে সড়কের উপর গাড়ি নিয়ে বাক-বিতন্ডা হলে আমি ঘটনাস্থল গেলে অতর্কিত হামলার সম্মুখিন হয়। একপর্যায় আমাকে প্রাননাশের হুমকি দেয়। এতে কোতোয়ালী মডেল থানায় প্রান-নাশের হুমকি ও হামলার বিচার চেয়ে সন্ত্রাসী বাবুর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করি। পাশাপাশি থানা পুলিশ অভিযোগ টি আমলে নিয়ে তদন্ত করার আশ্বাস দেন।

%d bloggers like this: