ঢাকা   ২৮শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ । ১৪ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ । মঙ্গলবার । সকাল ১১:৫৩

ফের চালু হচ্ছে বিশ্বের দীর্ঘতম ফ্লাইট, বাড়ছে দূরত্ব

একটানা ১৮ ঘণ্টার ফ্লাইট। সবাই এই ধকল সইতে পারে না। কারণ এটাই হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ যাত্রীবাহী ফ্লাইট। তাই এই ফ্লাইট বুক সাহসও আছে খুব কম মানুষেরই।করোনাভাইরাস মহামারির কারণে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের সিঙ্গাপুর-নিওয়ার্ক ফ্লাইট গত ২৩ মার্চ স্থগিত করা হয়। এর ফলে বন্ধ হয়ে যায় ৯ হাজার ৫৩৪ মাইল দূরত্বের এই ফ্লাইট।তবে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর এখন আবারও শুরু হবে নির্ধারিত এই ফ্লাইট। ৯ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া এই ফ্লাইট চলবে সিঙ্গাপুর-নিউইয়র্ক রুটে।এর ফলে এই রুটে দূরত্ব বাড়বে আরও দুই মাইল। সিঙ্গাপুর থেকে নিউইয়র্কের জন এফ কেনেডি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের দূরত্ব ৯ হাজার ৫৩৬.৫ মাইল।সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স বলছে, এতে করে ‘বর্তমান পরিস্থিতিতে যাত্রী ও কার্গো সেবার আরও ভালো মিশ্রণ ঘটবে’। করোনার কারণে যাত্রী কমে গেলেও ‘কার্গোর চাহিদা বাড়বে’ বলে মনে করছে সংস্থাটি। এর মধ্যে রয়েছে, ফার্মাসিউটিক্যাল, ই-কমার্স ও টেকনোলজি ফার্ম।

কতক্ষণ নিয়মিত যাত্রী এই ফ্লাইটের জন্য বুক করবে তা এখনও নিশ্চিত নয়। এছাড়া স্থায়ী বাসিন্দা, ভিসাধারী বা ‘এয়ার ট্রাভেল পাস’ (অস্ট্রেলিয়া, ব্রুনেই, নিউজিল্যান্ড ও ভিয়েতনাম) করা দেশের নাগরিক ছাড়া কেউই এখন সিঙ্গাপুরে প্রবেশ করতে পারছে না।

তবে সিঙ্গাপুরের কোনও কোম্পানি স্পন্সর করলে নির্দিষ্ট কয়েকটি দেশের নাগরিক সিঙ্গাপুর কাজের জন্য প্রবেশ করতে পারবে। এই তালিকায় রয়েছে- চীনের কয়েকটি প্রদেশ, মালয়েশিয়া, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া।সপ্তাহে তিনদিন চলবে এই ফ্লাইট। এয়ারবাস এ৩৫০-৯০০ দিয়ে পরিচালিত এই ফ্লাইটে ১৮৭টি ইকোনমি, ২৪টি প্রিমিয়াম ইকোনমি এবং ৪২টি বিজনেস ক্লাস আসন রয়েছে।করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেও চাঙ্গি বিমানবন্দর থেকে লস অ্যাঞ্জেলসে রুটে ফ্লাইট অব্যাহত রাখে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স। করোনার পরিস্থিতি উন্নতির মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অংশে চাহিদা অনুযায়ী এয়ার ট্রাভেল চালুর বিষয়ে সবকিছু পর্যালোচনারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছে সংস্থাটি।এদিকে সিঙ্গাপুর থেকে নিউইয়র্কগামী এই ফ্লাইটে সময় লাগবে ১৮ ঘণ্টা ৫ মিনিট। আর বাতাসের বিপরীত দিকে যেতে হবে বলে নিউইয়র্ক থেকে সিঙ্গাপুর যেতে সময় লাগবে ১৮ ঘণ্টা ৪০ মিনিট। যাত্রীরা বিমান ছাড়ার দুইদিন পর তাদের গন্তব্যে পৌঁছাবেন। কারণ ফ্লাইট ছাড়ার সময় রাত ১০টা আর পৌঁছানোর সময় সকাল ৬টা।

বিমানের ক্রুরা গগলস, গ্লাভস এবং মাস্ক পরবেন। মাস্ক পরতে হবে যাত্রীদেরও। তবে ফ্লাইটে খেতে এবং পান করতে পারবে না যাত্রীরা।

%d bloggers like this: