ঢাকা   ২৮শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ । ১৪ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ । মঙ্গলবার । দুপুর ১:০৪

নেতা নয়,জনগনের সেবক হতে চাই- মোঃ হোসাইন ফরহাদ

রাঙ্গাবালী প্রতিনিধিঃ  বাংলাদেশের সর্ব দক্ষিণে বঙ্গোপসাগরের কোল ঘেষে গড়ে ওঠা বিচ্ছিন্ন দ্বীপ পটুয়াখালী জেলাধীন রাঙ্গাবালী উপজেলার ৬টি ইউনিয়ন এর মধ্যে অন্যতম একটি ইউনিয়ন বড়বাইশদিয়া, যেখানে দীর্ঘ ১৮ বছর হয়নি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। -দীর্ঘ ১৮ বছর পর ২০২১ সালে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে এ ইউনিয়নের নির্বাচন। চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশ নিতে চান বড়বাইশদিয়া ইউনিয়নের কৃতি সন্তান হোসাইন ফরহাদ। তিনি এ জনপদের মানুষকে একটি মানবিক ইউনিয়ন পরিষদ উপহার দিতে কাজ করছেন । হোসাইন ফরহাদ বড়বাইশদিয়া ইউনিয়নের তরুন যুবক ও সাধারন গরীব দুঃখী, মেহনতি মানুষের হৃদয়ের স্পন্দন। সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বব্যাপী বিস্তার লাভ করা এক মরণব্যাধী করোনা ভাইরাস এর কারনে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে যখন ইউনিয়নের গরীব অসহায় ও স্বল্প আয়ের মানুষগুলো কর্মহীন হয়ে খাদ্য সংকটে ভুগছেন ঠিক তখনি নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী মানবতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে মানুষের দ্বার প্রান্তে পৌছে দিয়েছেন ত্রাণ সহায়তা। সাধারন মানুষ কে মহামারি করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন করতে জনসচেতনতা মূলক প্রচার প্রচারণা, মাইকিং,করোনা সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করেন। ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে জীবাণুনাশ স্প্রে করা সহ নানা কার্যক্রম পরিচালনা করেন তিনি। করোনা ভাইরাস যাতে বিস্তার লাভ না করতে পারে তার জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম ও সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করতে ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের জনসাধারণ কে সর্তকতা করেন। হোসাইন ফরহাদের, বিচক্ষন চিন্তা ভাবনা ও সমাজসেবা মুলক কর্মকান্ড ইতোমধ্যে জনগনের নজর কেড়েছে।বড়বাইশদিয়া ইউনিয়নের প্রধান সড়কপথের ভাঙ্গা স্থানে নিজ অর্থায়নে তৈরি করেছেন একটি কাঠের পুল এবং সজীব মুন্সী নামে এক ব্যক্তি কে স্হায়ীভাবে সাবলম্বি হওয়ার জন্য দিয়েছেন একটি টমটম গাড়ি। ইউনিয়ন বাসির সুখে-দুঃখে তাকে আমরা পাশে পাই। ইতিমধ্যে তিনি নিজ ইউনিয়ন ছাড়াও পুরো রাঙ্গাবালী উপজেলায় একজন আলোচিত ও জনপ্রিয় ব্যাক্তি হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছেন। জনাব ফরহাদ হোসেন জানান, আমি” নেতা হতে চাই না,জনগনের সেবক হতে চাই। বড়বাইশদিয়া ইউনিয়নে ১৮ বছর নির্বাচন হয় না। যারা এই নির্বাচন কে বন্ধ রাখতে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিলেন,অামাদের নাগরিক অধিকার কে ক্ষুন্ন করেছেন। আমরা কেনো ভোট দিতে পারব না? কি দোষ ছিলো আমাদের? যখন থেকে বঙ্গবন্ধু কে বুঝতে শিখেছি তখন থেকে আওয়ামিলীগ করতেছি, অতএব আমি প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখহাসিনা’র নেতৃত্বে ও তার দেখানো পথে আসতে চাই ইনশাআল্লাহ। আগামি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমি চেয়ারম্যান পদে প্রতিদন্ধিতার মাধ্যমে ভোটের মধ্যে দিয়ে জনগনের সেবক হতে চাই। এর ভিতরে অপকৌশলীরা থেমে নাই যাতে নির্বাচন নামক এই সোনার হরিন জনগন না দেখতে পায়। তিনি আরো বলেন যে, একজন জনপ্রতিনিধি কখনোই তার নিজের ভিতর সীমাবদ্ধ থাকতে পারে না। তাই আজ আমি আপামর জনসাধারণ এর জন্য নিজেকে বিসর্জন দিতে প্রস্তত।

%d bloggers like this: