ঢাকা   ২৮শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ । ১৪ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ । মঙ্গলবার । দুপুর ১২:০৪

নির্বাচনী পরিক্রমাঃ জনপ্রিয়তার শীর্ষে বরিশালের জাগুয়া ইউনিয়ন’র সাইদুল শিকদার

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বরিশাল সদর উপজেলার ০৬ নং জাগুয়া ইউনিয়নে নির্বাচনী আমেজ শুরু হয়েছে। নির্বাচনী প্রচারে মাঠে নেমে পড়ছে বরিশাল সদর উপজেলা সহ সব কয়টি ইউনিয়নের এর সম্ভাব্য প্রার্থীরা। নির্বাচনী মাঠ এখন সরগরম। কেউ কেউ ৬ মাস ১ বছর আগ থেকে পাড়া-মহল্লায় ঘুরে-ঘুরে জনসমর্থন যাচাই করেছেন। এবারের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে ভোটারদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা একটু বেশিই পরিলক্ষিত হচ্ছে। জাগুয়া ইউনিয়নের নির্বাচনী সময় ঘনিয়ে আসার সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে উৎসব মুখরতা। চায়ের টেবিলের আড্ডায় গল্পকথাসহ পথে প্রান্তরে সর্বত্রই ঘুরেফিরে প্রচার হচ্ছে নির্বাচনী আলোচনা।এই আলোচনায় অনেকের মধ্যে অন্যতম প্রার্থী হতে পারেন জাগুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সাইদুল শিকদার এর নাম সর্বত্র প্রচার করছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সহ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। সরোজমিনে জানা যায় যে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ সহ সংগঠনের সকল নেতা কর্মীর সাথে ভাল সম্পর্ক গড়ে তোলার কারণে তাকে এবারের নির্বাচনে বেছে নিতে পারেন ইউনিয়ন সহ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
নির্বাচনের বিষয়ে সাইদুল শিকদার এরসাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন , দল যদি আমাকে নৌকার মনোনয়ন দেয় তাহলে আমি দলীয় নেতা কর্মী ও সাধারণ জনগনকে সাথে নিয়ে আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবো । তবে আমি এলাকার সাধারণ মানুষের সাথে সবসময় ছিলাম এবং থাকব ইনশাআল্লাহ । খোজ নিয়ে জানা গেছে তরুন এই নেতার সামাজিক কর্মকান্ড এবং তৃনমূলের নেতৃবৃন্দের সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকার কারণে মনোনয়ন দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে থাকবেন বলে অনেকেই ধারণা করেন। তবে বরিশাল সদর উপজেলার সবকটি ইউনিয়নের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা সবাই দক্ষিনাঞ্চলের রাজনৈতিক অভিভাবক আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর আর্শিবাদ চাচ্ছেন সকল প্রার্থী। সেক্ষেত্রে কে মনোনয়ন পাবেন সেটা এখনই বলা কঠিন।ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের এক সিনিয়র নেতা বলেন ছেলেটা অত্যান্ত ভদ্র ও নম্র আমাদের সবার সাথেই তার ভাল সম্পর্ক তাকে যদি দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয় তাহলে দলীয় নেতাকর্মীসহ ইউনিয়নের সকল লোকজন এর তাদের মনের আশা পূরণ হবে। সাইদুলের জন্য প্রয়োজনে যদি আমাদের সবাইকে হাসানাত ভাই ও প্রতিমন্ত্রীর কাছে অনুরোধের জন্য যেতে হয় তাহলে আমরা সেখানে যেতে প্রস্তুত।সবমিলিয়ে আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন করতে অদম্য ইচ্ছা নিয়ে বসে আছেন ঐক্যবদ্ধ জনতা। এখন শুধু সময়ের পালা। সাধারন জনতা বলেন – এই নেতা মহামারী কোভিড- ১৯ এর সময় ইউনিয়নের সাধারণ ও গরিব কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন এবং গভীর মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে রাতের আধারে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন। আমরা তার এই মহানুভব কর্মকাণ্ডের জন্য তিনি যদি আগামী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন তাহলে তাকেই বেছে নিব বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি।
৬ নং জাগুয়া ইউনিয়ন কে একটি আধুনিক ও মডেল রূপ দেয়ার জন্য তাকেই প্রয়োজন।
পাশাপাশি ইউনিয়নের সকল সেবা নিশ্চিত করতে বিরামহীনভাবে কাজ করে চলেছেন তিনি।
আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের নেয়া উন্নয়নের সকল ছোঁয়া এই ইউনিয়ন বাসিকে পৌঁছে দেওয়ার জন্য নিরলস চেষ্টা করে যাবো আমার অবস্থান থেকে। এছাড়া স্বাস্থ্যসেবা ও ইউনিয়ন কে মাদকমুক্ত রাখতে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবো, মা ও শিশুর উন্নত স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে কাজ করবো, এবং ইউনিয়ন বাসীর সকল সেবা নিশ্চিত করতে আমি আজীবন কাজ করে যাব ইনশাআল্লাহ।

%d bloggers like this: