ঢাকা   ৩০শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ । ১৬ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ । বৃহস্পতিবার । সকাল ৬:৫৪

ঝালকাঠিতে কলেজছাত্র হত্যায় ৪ জনের যাবজ্জীবন

অনলাইন ডেস্কঃ ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার বড়ইয়া গ্রামে এইচএসসি পরীক্ষার্থী মেহেদী হাসান মনিব ওরফে শুভ হত্যা মামলায় ৩ সহোদর সহ ৪ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে বরিশাল বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল। একই সাথে মামলার অপর ৫ আসামীকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে।

বুধবার দুপুর আড়াইটায় ট্রাইব্যুনালের বিচারক এ,এইচ,এম মাহমুদুর হমান আসামীদের উপস্থিতিতেেএই রায় ঘোষণা করেন। এদিকে এ মামলার অপর ৩ আসামী শিশু হওয়ায় তাদের বিচার কার্যক্রম চলছে ঝালকাঠির শিশু আদালতে।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামীরা হলেন: তিন সহোদর বেল্লাল ফকির, হেলাল ফকির ও ফয়সাল ফকির এবং জসিম খান। খালসপ্রাপ্তরা হলেন: নবীন মিয়া, মো. ইসরাফিল, মো. জুয়েল, আব্দুস সালাম ও মো. এনারুল। দণ্ডপ্রাপ্তরা ওই এলাকার বাসিন্দা।

ট্রাইব্যুনাল সূত্র জানায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ২০১৯ সালের ২৫ মার্চ রাতে রাজাপুরের বড়ইয়া গ্রামের বাসিন্দা ও রাজাপুর কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী মেহেদী হাসান মনিব ওরফে শুভকে পিকনিকের নাম করে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে কুপিয়ে জখম করে প্রতিপক্ষের দুর্বৃত্তরা। পরদিন সকালে শুভর স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

এ ঘটনায় শুভর বাবা মো. আবদুল্লাহ আল মাহবুব বাদী হয়ে ১৫ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাতনামা ৬ জনকে আসামী করে রাজাপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। রাজাপুর থানায় পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ ৯ জনকে অভিযুক্ত করে ২০২০ সালের ২০ জুলাই আদালতে একটি অভিযোগপত্র দাখিল করেন। একই মামলার আসামী অপর ৩ শিশুর বিরুদ্ধে আদালতে পৃথক অভিযোগপত্র দেয় তদন্ত কর্মকর্তা।

পরে বরিশাল বিভাগীয় ট্রাইব্যুনালে ২৪ জনের মধ্যে ২২ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে হত্যার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আজ ৩ সহোদর সহ ৪ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৩ মাসের দণ্ডাদেশ দেয়া হয়। অপর ৫ আসামীকে দেয়া হয় বেকসুর কালাস। মামলার অপর ৩ আসামী অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় তাদের বিচার চলছে ঝালকাঠি শিশু আদালতে।

বাদী ও তার স্বজনরা আজকের রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। এদিকে এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চাদালতে আপিল করার কথা জানিয়েছেন আসামী পক্ষের আইনজীবী।

%d bloggers like this: