Logo
নোটিশ :
স্বাগতম একুশের আলো .....

দক্ষিনাঞ্চলবাসীর সপ্ন পূরনের সবশেষ সেতু চালু হচ্ছে জুনে

আরও একটি স্বপ্ন পূরন হচ্ছে দক্ষিনাঞ্চলবাসীর। দেশের সর্ব দক্ষিনের কুয়াকাটা সমূদ্র সৈকত এবং পায়রা সমূদ্র বন্দর পর্যন্ত চালু হচ্ছে ফেরীবিহীন সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা। আসছে জুনের শেষভাগে যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হচ্ছে ঢাকা-বরিশাল-কুয়াকাটা মহাসড়কের লেবুখালী সেতু। পর্যটকদের কাছে আকর্ষনীয় করতে বরিশাল ও পটুয়াখালী জেলার মধ্যবর্তী পায়রা নদীর উপর সেতুটি নির্মান করা হচ্ছে। নান্দনিক নকশায় এক্সট্রাডোজ ক্যাবল স্টেট পদ্ধতিতে। আগামী জুনের শেষ দিকে বহুল প্রত্যাশিত সেতুটি উন্মুক্ত করে দেয়ার মধ্য দিয়ে দেশের সড়ক যোগাযোগে নতুন মাইলফলক স্থাপন করতে যাচ্ছে শেখ হাসিনার সরকার। ৯০ দশকেও রাজধানী ঢাকা থেকে সড়ক পথে বরিশাল জেলা সীমানায় প্রবেশের পর সমূদ্র সৈকত কুয়াকাটায় যেতে ৭টি ফেরী পাড় হতে হতো। প্রতিটি ফেরীঘাটে দীর্ঘ অপেক্ষা, ভোগান্তি আর হয়রানীর কারনে পর্যটকদের কাছে সাগরকন্যা কুয়াকাটা ছিলো এক দুঃস্বপ্নের নাম। পর্যায়ক্রমে শিকারপুর, দোয়ারিকা, পটুয়াখালী, দপদপিয়া, কলাপাড়া, মহিপুর এবং আলীপুর পয়েন্টে সেতু নির্মিত হলেও পায়রা নদীর লেবুখালী ফেরীঘাটে বিড়ম্বনা সইতে হয়েছে কুয়াকাটাগামী পর্যটকসহ দক্ষিনের মানুষের। যানবাহনের চাপের কারনে ফেরীঘাটে কেটে যেত দিনের একাংশ। তবে সেই চিত্র আর থাকছে না। নতুন বছরেই ফেরী বিহীন সড়ক যোগাযোগে নতুন দিগন্ত উন্মেচিত হতে যাচ্ছে বরিশালে। বরিশাল থেকে কুয়াকাটা পর্যন্ত আর কোন ফেরির ঝামেলা থাকছেনা। ফলে ভবিষ্যত প্রযন্ম জানবে এই রুটে কোন ফেরি নেই। এক সময় ছিল যখন বহু ফেরি পারাপার হয়ে কুয়াকাটা হয়ে পায়রা বন্দর পযন্ত পৌছতে হত । এখন সেটা কেবলই ইতিহাস।

 

Print Friendly, PDF & Email

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *